শুক্রবার, ৫ জুন ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু” ড. মঈনের পরিবার সরকারের প্রথম ক্ষতিপূরণ পাচ্ছে ৫০ লাখ  » «   চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণের দায়ে অষ্টম শ্রেণির ছাত্র আটক  » «   নবীগঞ্জে বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত ২০  » «   জগন্নাথপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা আদায়  » «   জগন্নাথপুরে করোনায় পুলিশ ও ব্যাংক কর্মকর্তা আক্রান্ত  » «   কবির আহমদ মুশনের মৃত্যুতে জেলা আ.লীগের শোক  » «   ধর্মপাশায় স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই জমজমাট গরুর হাট  » «   সিলেটে বিজলী’র গতিতে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত সংখ্যা  » «   দৈনিক আমার বাংলাদেশের উপদেষ্টা’গোলাপ মিয়া’কে অভিন্দন  » «   ঈদ উপহারে অনিয়ম হবিগঞ্জের লাখাইয়ে চেয়ারম্যান বরখাস্ত  » «   লকডাউনে সৌদি আরবে! বেড়েছে দ্বিতীয় বিয়ে ও ডিভোর্স  » «   ইয়াবা সহ (১)এক মাদক ব্যাবসায়ীকে আটক করেছে এসএমপি পুলিশ  » «   করোনার ডেঞ্জার জোন হিসাবে আখ্যায়িত হতে যাচ্ছে সিলেট।  » «   থেমে নেই’ছাত্রলীগ সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল”ফারাবি হাসান রাকিব  » «   বিয়ানীবাজারে নতুন শনাক্ত ৫ করোনা রোগীর বাড়ি লকডাউন  » «  

সাকিয়া এবং মানসীর মোটসাইকেলে দুঃসাহসিক ভ্রমণ

আমার বাংলাদেশ অনলাইন ডেস্ক : সারাদেশের ৬৪ জেলার প্রত্যন্ত এলাকা মোটরসাইকেলে ঘুরে রেকর্ড তৈরি করেছেন বাংলাদেশের দুই তরুণী। রোববার (৫ মে) ‘নারীর চোখে বাংলাদেশ’ নামে মোটর সাইকেল ভ্রমণ আনুষ্ঠানিকভাবে শেষ করার ঘোষণা দেন দুই তরুণী। সম্প্রতি বিবিসির এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে পেশায় চিকিৎসক সাকিয়া হক এবং মানসী সাহার নামের এই দু:সাহসী তরুণীর অভিযানের কথা।

বলা হচ্ছে, বাংলাদেশের সামাজিক বাস্তবতায় এই বয়সের দু’জন মেয়ের এভাবে মোটরসাইকেলে সারাদেশ ঘুরে বেড়ানো বেশ বিরল শুধু নয়, দুঃসাহসিকও বটে।

এই ভ্রমণের সময় দেশের নানা দর্শনীয় স্থান ঘুরে দেখার পাশাপাশি তারা সামাজিক সচেতনতামূলক কাজেও অংশ নিয়েছেন।

২০১৭ সালের ৬ই এপ্রিল তাদের এই যাত্রা শুরু হয়। দুই বছর পরে ৫ই এপ্রিল তারা সম্পন্ন করে তাদের ৬৪ জেলা সফর।

এই সফরে প্রতিটি জেলায় একটি করে স্কুলে তারা মেয়েদের সচেতনতা বাড়ানোর চেষ্টা করেন।

এভাবে দুইজন মেয়ের মোটর বাইকে দেশের ৬৪টি জেলা ভ্রমণের ক্ষেত্রে নিরাপত্তার বিষয়ে তারা বলেন, ‘রুট প্ল্যান আমরা আগে থেকেই করেছি। সন্ধ্যার আগে অর্থাৎ দিনের মধ্যে যাওয়ার চেষ্টা করেছি। এছাড়া সব জেলাতেই উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বা পুলিশকে জানিয়ে গিয়েছি।’

দুই তরুণীর একজন সাকিয়া হক বলেন, ‘কিছু কিছু রাস্তা আছে যেগুলো হয়তো গা ছমছম করা অন্ধকার, তাছাড়া খুব একটা প্রতিবন্ধকতায় পড়তে হয়নি। মানুষ খুব হেল্পফুল ছিল।’ শুরুর দিকে তার নিজের মাও বিষয়টিকে ইতিবাচকভাবে নিতে না পারলেও এখন তিনি বিষয়টিতে উৎসাহ দিচ্ছেন জানান সাকিয়া হকের মা মিজ হক।

বর্তমানে ‘ট্রাভেলেটস অব বাংলাদেশ-ভ্রমণকন্যা’ নামে মেয়েদের নিয়ে ভ্রমণবিষয়ক একটি সংগঠন গড়ে তুলেছেন সাকিয়া হক। কিন্ত প্রথমদিকে তার এই পরিকল্পনার জন্য অন্য মেয়েদের সঙ্গী হিসেবে খুঁজে না পেলেও ধীরে ধীরে মেয়েদের আগ্রহ বাড়তে থাকে বলে জানান তিনি।

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে(লাইনে) ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

ভালো লাগলে সংবাদটি শেয়ার করেন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: -