রবিবার, ১৮ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
সাকিবের সঙ্গে দ্বন্দ্ব নিয়ে মুখ খুললেন মাহমুদুল্লাহ  » «   সিলেটে ২৪ ঘণ্টায় ১৯ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত  » «   ঘুরে এলাম- বাংলাদেশের একমাত্র সোয়াম্প ফরেস্ট  » «   জগন্নাথপুরে গাঁজা সহ যুবক গ্রেফতার  » «   জগন্নাথপুর পৌর শহরে ইজিবাইক চলাচল বন্ধে প্রশাসনের অভিযান  » «   জগন্নাথপুরে অগ্নিকান্ডে ৮ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি  » «   ফটোসাংবাদিক নুরুলের শয্যাপাশে জমিয়ত নেতা শাহবাগী  » «   বিয়ানীবাজারে স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় মামলা  » «   ফুটপাতের থেকে ফোর্বসের তালিকায় স্থান করে নিলেন এই তরুণ উদ্যোক্তা  » «   যে কারণে কলকাতায় চোখের ডাক্তার দেখানো হলো না মঈনুল ও তানিয়ার  » «   বাংলাদেশ থেকে অনুপ্রেরণা পেয়ে জাপানি তরুণের ইসলাম গ্রহণ  » «   দক্ষিণ ছাতক উপজেলা চাই: আবু জাবের  » «   বালাগঞ্জ ডেইযুসের কমিটি গঠন  » «   হবিগঞ্জে ফেনসিডিলসহ গ্রেপ্তার ২  » «   মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত ডাকাত এরশাদ সিলেট থেকে গ্রেপ্তার  » «  

কেনাকাটার ধুম পড়েছে মসলা বাজারে

আমার বাংলাদেশ অনলাইন ডেস্ক :কাল সোমবার পবিত্র ঈদুল আযহা । এই ঈদের অন্যতম অনুষঙ্গ হচ্ছে মসলা। কোরবানির পশু ক্রয়সহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক বাজার শেষে সকলেই মসলার বাজারের দিকে ছুটেন।
কোরবানি গরু কেনা শেষের পথে-ফলে মসলার বাজারও জমে উঠেছে বলে জানিয়েছেন নগরীর প্রধান পাইকারী বাজার কালিঘাটের অনেক ব্যবসায়ী। কালিঘাটের বিভিন্ন দোকান ঘুরে দেখা যায়, ভিন্ন ভিন্ন দরে এসব মসলা জাতীয় পণ্য বিক্রি হচ্ছে।

নগরীর মসলার বাজার ঘুরে দেখা যায়, প্রতি কেজি দারুচিনি ভালো মানের ৩৬০ থেকে ৩৮০ টাকা, ২ নং মানের ২৭০ টাকা, এলাচ ভালো মানের ২২৬০ থেকে ২২৮০ টাকা, ২নং মানের ২১৮০ টাকা, জিরা ভালো মানের ৩০৫ থেকে ৩২০ টাকা, ২নং মানের ২৮০ টাকা, লবঙ্গ ভালো মানের ৭৭০ থেকে ৮৪০ টাকা, ২নং মানের ৭২০ টাকা, গুলমরিচ ৩৫০ থেকে ৫২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
আর প্রতি কেজি কিসমিস (সাদা) ২৭৫ টাকা, নরমাল ২৬০ টাকা, জয়ত্রী ২৩৫০ থেকে ২৫২০ টাকা, আলুবোখরা ২৬০ থেকে ২৯০ টাকা, পোস্তদানা ভালো মানের ৮২০ টাকা এবং জায়ফল প্রতি পিস ৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
হলুদ (আস্ত) শুকনো এলসি (ভারতীয়) প্রতি কেজি ১০০ টাকা, ধনিয়া আস্ত ৭৫ থেকে ৮০ টাকা, মরিচ আস্ত ১৮০ থেকে ১৮৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া টাইগার ব্র্যান্ডের হলুদ ৩১০ টাকা, মরিচ ২৮০ টাকা, ধনিয়া ২২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
পাইকারী দরে বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি পিঁয়াজ (পাটনা) ২৪ থেকে ২৫ টাকা, (এলসি) ২৭ টাকা, রসুন (চায়না) ১৫৫ থেকে ১৬০ টাকা, দেশি রসুন ১০৫ থেকে ১১০ টাকা, আদা (চায়না) ১৩০ থেকে ১৩৫ টাকা।

কালিঘাটের মেসার্স রহমত স্টোরের মালিক হাজী রহমত মিয়া জানান, এবার ঈদের আগে শুধু দারুচিনি ও এলাচের দাম বেড়েছে। অন্য মসলার দাম স্থিতিশীল। তিনি আরো জানান, বাজারে পর্যাপ্ত মসলা কিন্তু সে তুলনায় বিক্রি কম।
মেসার্স ধীরেন্দ্র মোহন দাস (ধীরু বাবুর দোকান) এর ম্যানেজার অশোক দেব জানান, তাদের দোকানে ভালো মানের মসলা বিক্রি হয়।
মেসার্স জনপ্রিয় বাণিজ্যালয় (পিয়াঁজ-রসুন-আদার আড়ৎ) এর ম্যানেজার গৌতম রায় জানান, এবার কোরবানীর ঈদের আগে পিয়াঁজ ও রসুনের দাম বাড়েনি। আর বিক্রিও স্বাভাবিক বলে মন্তব্য করেন তিনি।

গত কোরবানীর ঈদে জিরা প্রতি কেজি ৩৫০ থেকে ৩৮০ টাকা, দারুচিনি ৩২০ থেকে ৩৫০ টাকা, লবঙ্গ ৯৫০ থেকে ১০০০ টাকা, এলাচ ১৮০০ থেকে ১৮৫০ টাকা, গুলমরিচ ৮০০ থেকে ৮৫০ টাকা, জয়ত্রী ২৫০০ থেকে ২৮০০ টাকা, কিসমিস ৩৫০ থেকে ৪০০, আলুবোখারা ৫৫০ থেকে ৫৮০, পোস্তাদানা ১৬৫০ থেকে ১৮০০ টাকা এবং জায়ফল প্রতি পিস ১০ থেকে ১২ টাকায় বিক্রি হয়।
গত কোরবানীর ঈদের তুলনায় এবার জিরা, লবঙ্গ, গুলমরিচ, জয়ত্রী, কিসমিস, পোস্তদানা, জায়ফল কম দামে বিক্রি হচ্ছে। শুধু দারুচিনি ও এলাচের দাম কিছুটা বেড়েছে।
বন্দর বাজারের খুচরা মসলা বিক্রেতা রিপন বলেন, মসলার দাম প্রায় স্থির রয়েছে। দু’একটির দাম কিছুটা বাড়লেও মসলা যেহেতু পরিমাণে কম লাগে- তাই এসব পণ্য ক্রয়ে ক্রেতাদের জন্য অতিরিক্ত টাকা খরচ হয় না।

খুচরা বিক্রেতা শহীদ আহমদ বলেন, ক্রেতাদের ২০/৩০ টাকার মধ্যে গরম মসলা (লং, এলাচ, গুলমরিচ, দারুচিনি, জিরা) দেয়া যেতো। এখন এই দামে দেয়া যায় না। তবে, পরিমাণে কম লাগে বলে মানুষ মসলার বাজার নিয়ে কোনো অসুবিধায় পড়বে না।
বাজার করতে আসা মুহিবুর রহমান ও লোকমান মিয়া জানান, কোরবানির ঈদ মানেই কোরবানির মাংস খাওয়া। আর মাংস রান্না করতে অপরিহার্য মসলা। তারা বলেন, গরু কেনার প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে তাই এখন মসলা কিনতে এসেছেন। তবে বাজার কিছুটা চড়া। বিশেষ করে দারুচিনি ও এলাচের দাম বেশি। তারা আরো বলেন, রোজার ঈদে সেমাই, ফিরনি-পায়েস হলেই চলে। আর কোরবানীতে মাংসের পাশাপাশি সেমাই, ফিরনি-পায়েস রান্না করা হয়।

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে(লাইনে) ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

(আমার বাংলাদেশ/রু-আহমেদ/র/২/প/ম )

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: -