শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
এবার ১৩ নম্বর জার্সি পরে দুই গোল দিলেন সানি লিওন  » «   ধর্মই বদলে দিয়েছে যে ১০ মুসলিম ক্রিকেটারের জীবন!  » «   যে কারণে হেলিকপ্টারে নোয়াখালী গেলেন পূর্ণিমা  » «   সৌদি বিশ্ববিদ্যালয়ে অ্যাওয়ার্ড পেলেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী  » «   ঐশ্বরিয়ার জন্য কষ্ট পান সালমান খান!  » «   সিলেটের রাজনীতির মাঠের বহুল আলোচিত নিপু গ্রেপ্তার  » «   টমি মিয়া’স ইন্সট্টিউটের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সনদ বিতরণ অনুষ্ঠিত  » «   বেনাপোল সীমান্তে ফেনসিডিল ও গাঁজা সহ আটক ২  » «   আওয়ামী এজেন্টরা সিলেট যুবদলের ঐক্য বিনষ্ট করেছে  » «   কানাইঘাট থেকে আলিম উদ্দিন নিখোঁজ  » «   বড়াইগ্রামে এমপি’র কারণে জীবন ফিরো পেলো ‘বটগাছ’টি  » «   সিলেট যুবদলের বিভিন্ন থানা ও পৌর কমিটি বিলুপ্তির প্রতিবাদ  » «   ছাতকে আগুনে পুড়ল মোরগসহ পোল্ট্রি ফার্ম   » «   ছাতকে ক্যান্সারে আক্রান্ত মাকে বাঁচাতে কন্যার আকুতি  » «   জকিগঞ্জে হাত-পা বেঁধে নির্যাতনকারী মেম্বার আটক  » «  

শিবগঞ্জে অনশনরত অনন্যাকে নয়নের পরিবার ঘরে তুললেন বিবাহের আশ্বাসে!

আমার বাংলাদেশ অনলাইন ডেস্ক :শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার পৌর এলাকার ৯নং ওয়ার্ডের ভূরঘাটা গ্রামে নয়নের বাড়িতে বিয়ের দাবীতে ৩দিন ধরে অনশনরত নার্সিং কলেজের শিক্ষার্থী অনন্যাকে সুস্থ হলে বিবাহের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ঘরে তুললেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় পড়–য়া নয়নের পরিবার।
জানা যায়, শিবগঞ্জ পৌর এলাকার জলিল প্রামানিকের একমাত্র সন্তান রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে আরবী বিভাগে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী জয়নাল আবেদিন নয়নকে বিয়ের দাবীতে ভূরঘাটায় নয়নের গ্রামের বাড়িতে অনশনরত নার্সিং কলেজের শিক্ষার্থী মেঘনা আক্তারকে(অনন্যা) ঘরে তুলেছেন নয়নের পরিবার। সরেজমিনে গেলে অনশনরত মেঘনা আক্তার অনন্যা সাথে বলতে চাইলে প্রথমে সাংবাদিকদেরকে বাঁধা প্রদানের চেষ্টা করা হয়। পরে ছেলের মা সাংবাদিকদের সাথে ঘরের বাহিরে কথা বললেও অনন্যাকে যে ঘরে রাখা হয়েছে সে ঘরে সাংবাদিকরা কথা বলতে গেলে নয়নের বাবা জলিল সাংবাদিকদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করে। সাংবাদিকরা তাকে প্রশ্ন করলে সে কর্কশ ভাষায় বলে হ্যাঁ মেনে নিয়েছি। কিন্তু ছেলের বাবা জলিল অনন্যার সাথে কথা বলতে দেয়নি। ছেলের পরিবারের পক্ষ থেকে সাংবাদিকদের বলা হয় থানায় ওসির সাথে বিষয়টি নিয়ে কথা হয়েছে। এব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান বলেন, আমার সাথে ছেলের পরিবারের কোন কথা হয়নি, ৩লক্ষ টাকা দেনমোহরানার বিষটিও আমি জানিনা, এমনি মেয়েটিকে মেনে নেওয়া হয়েছে তাও আমি জানিনা। মেয়েটি শেষ পর্যন্ত সুফল পাবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন এলাকার সচেতন একটি মহল, তারা আরও বলেছেন মেয়েটির বিপক্ষে একটি প্রভাবশালী মহল কাজ করছে।

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে(লাইনে) ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

(আমার বাংলাদেশ/কেআহমেদ// )

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: -