রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে চট্টগ্রামের আঞ্চলিক জোড় ইজতেমা সম্পন্ন  » «   কেন্দ্রীয় সভাপতির উপর হামলার নিন্দা জানিয়েছে সিলেট জমিয়ত  » «   সিলেটে ইসলামী ব্যাংক মিরবক্সটুলা উপশাখা’র উদ্বোধন  » «   ফ্রান্স জমিয়তের সভাপতিকে জমিয়ত নেতৃবৃন্দের ফুলেল শুভেচ্ছা  » «   শাজাহান খানের মিথ্যাচারে নিসচা সিলেট মহানগরের নিন্দা  » «   বিজয়ের বই মেলা ও যুদ্ধদিনের স্মৃতি ৭১-এর উদ্বোধন  » «   ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা মৎস্যজীবী লীগের কমিটি গঠন  » «   মাসুক উদ্দিন আহমদকে সিলেট আইনজীবী সমিতির ফুলেল শুভেচ্ছা  » «   কোনো ষড়যন্ত্রই শেখ হাসিনার ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতে পারবে না :নজীবুর রহমান নজীব  » «   জাহান্নামের বর্ণনা ও জাহান্নামীদের শাস্তি কি হবে সকলে জেনে নিন!  » «   সভা-মিছিল নিষিদ্ধ ছাতকে ১৪৪ ধারা জারি  » «   জগন্নাথপুরে ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত  » «   শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের চেহারা পাল্টে গেছে : পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান  » «   খেয়েও কেন অপুষ্টিতে ভোগে বাংলাদেশিরা?  » «   বিস্মিত সালমান-ক্যাটরিনার ম্যানেজার!  » «  

ছাতকে ক্যান্সারে আক্রান্ত মাকে বাঁচাতে কন্যার আকুতি

আতিকুর রহমান মাহমুদ, ছাতক থেকে :দুরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সার আক্রান্ত মা হাসিরুন নেছা (৫০)কে বাঁচাতে মানবিক সহযোগিতা চেয়েছেন নাছিমা আক্তার জ্যোতি। তিনি ছাতকের ইসলামপুর ইউনিয়নের বাহাদুরপুর গ্রামের মৃত শফিক মিয়ার কন্যা। দীর্ঘ দিন ধরে ক্যান্সারে আক্রান্ত তার মায়ের চিকিৎসায় সহায় সম্বল যা ছিল সব বিক্রি করে এখন তিনি প্রায় নিঃস্ব। ব্যয় বহুল এই চিকিৎসার খরচ বহন করতে না পেরে মৃত পথযাত্রী মাকে নিয়ে তিনি এখন বাড়িতেই মানবেতর জীবন যাপন করছেন। দুই বোন ও ছোট এক ভাইয়ের পরিবারের একমাত্র অভিভাবক মা। এ মায়ের চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রীসহ সমাজের বিত্তবানদের কাছে আর্থিক সহযোগিতা চেয়েছেন বড় কন্যা জ্যোতি।
জ্যোতি জানান, প্রায় ১৬ বছর পূর্বে কান্সার আক্রান্ত হয়ে মারা যান তার পিতা শফিক মিয়া। পিতার মৃত্যুর পর জ্যোতি, তার বোন ফাতেমা ও একমাত্র ছোট ভাই রবিউল আলম নাহিদকে নিয়ে ইসলাপুর গ্রামে মামার বাড়িতে বসবাস করে আসছেন। পিতার অবর্তমানে তিনিই তাদের একমাত্র অভিভাবক। তার মা হাসিরুন নেছাও প্রায় এক বছর হলো দুরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন। এরপর স্থানীয় চিকিৎসক থেকে শুরু করে কয়েক দফায় সিলেটের বিভিন্ন হাসপাতালে মাকে চিকিৎসা করানো হয়েছে। এতে তার মায়ের কোনো উন্নতি হয়নি। বর্তমানে তার মায়ের শারিরিক অবস্থা খুবই শঙ্কটাপন্ন। জ্যোতি আরো বলেন, সম্প্রতি তার মাকে আবারও সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে দ্রæত অপারেশন করানোর কথা জানান। তাকে দ্রæত অপারেশনের করানো না গেলে তিনি মারা যেতে পারেন বলেও জানান চিকিৎসকরা। সব মিলিয়ে ব্যয়ভার প্রায় দুই লক্ষ টাকা। সহায়-সম্বলহীন জ্যোতি অপারেশনের জন্য এতো টাকার ব্যবস্থা করতে পারেননি বলে চিকিৎসার অভাবে মাকে নিয়ে বাড়িতে অবস্থান করছেন। জ্যোতি বলেন, ‘মায়ের চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করতে গিয়ে তারা সহায়-সম্বল হারিয়ে প্রায় নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন। দু’বেলা এখন আমাদের মুখে খাবারও জোটছে না। কিন্তু চোখের সামনে বিনা চিকিৎসায় মাকে মরতে দেখতে পারি না।’ এর জন্য মৃত্যু পথযাত্রী মায়ের চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও সমাজের বিত্তবানদের কাছে মানবিক সাহায্য প্রার্থনা করেন জ্যোতি। জ্যোতির মাকে আর্থিক সাহায্য পাঠাতে মোবাইল নাম্বার-(বিকাশ) ০১৭২৩-২৩৭৬৫৮, নাছিমা আক্তার জ্যোতি ও কৃষি ব্যাংক ছাতক শাখা, হিসাব নম্বর- ০৩১০১৪৪৮৮১

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে(লাইনে) ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

(আমার বাংলাদেশ/রু-আহমেদ/প/ম )

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: -