রবিবার, ৫ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২১ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
গোলাপগঞ্জে ছাত্রদলেন উদ্যোগে মাস্ক ও সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ  » «   মিয়ানমারের জেনারেলরা চীনের ওপর অসন্তুষ্ট  » «   বার্সেলোনাকে মেসির পক্ষে একাটানা সম্ভব না’  » «   চীনের দাবি স্পেন থেকে ছড়িয়েছে করোনা  » «   বগুড়ায় যাত্রী সেজে কৌশলে মিষ্টি কিনতে পাঠিয়ে অটোরিকশা চুরি  » «   করোনা টেস্ট বিনামূল্যের দাবিতে রাজশাহীতে মানববন্ধন  » «   র‌্যাবের ভুয়া পরিচয়ে চাঁদাবাজি ২ যুবক আটক  » «   বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেল ২ মোটরসাইকেল আরোহীর  » «   ট্রাক-পিকআপ সংঘর্ষে ২ চালক নিহত  » «   রোটারি ক্লাব অব সিলেট গ্রীন সিটির দায়িত্ব হস্তান্তর  » «   বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা প্রদান আব্দুল জব্বার জলিল ট্রাস্টের সময়োপযোগী উদ্যোগ: নাদেল  » «   ২০ লাখ টাকার অবৈধ তার মিলল পল্লী বিদ্যুতের গোডাউনে  » «   ১০ শয্যাবিশিষ্ট সেন্ট্রাল অক্সিজেন ইউনিটের উদ্বোধন  » «   করোনা পজিটিভ’ হলেও সুস্থ আছি”মাশরাফি  » «   আইসোলেশনে থেকে হাস্যকর প্রেস ব্রিফিং করে বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী  » «  

ছাতকে ক্যান্সারে আক্রান্ত মাকে বাঁচাতে কন্যার আকুতি

আতিকুর রহমান মাহমুদ, ছাতক থেকে :দুরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সার আক্রান্ত মা হাসিরুন নেছা (৫০)কে বাঁচাতে মানবিক সহযোগিতা চেয়েছেন নাছিমা আক্তার জ্যোতি। তিনি ছাতকের ইসলামপুর ইউনিয়নের বাহাদুরপুর গ্রামের মৃত শফিক মিয়ার কন্যা। দীর্ঘ দিন ধরে ক্যান্সারে আক্রান্ত তার মায়ের চিকিৎসায় সহায় সম্বল যা ছিল সব বিক্রি করে এখন তিনি প্রায় নিঃস্ব। ব্যয় বহুল এই চিকিৎসার খরচ বহন করতে না পেরে মৃত পথযাত্রী মাকে নিয়ে তিনি এখন বাড়িতেই মানবেতর জীবন যাপন করছেন। দুই বোন ও ছোট এক ভাইয়ের পরিবারের একমাত্র অভিভাবক মা। এ মায়ের চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রীসহ সমাজের বিত্তবানদের কাছে আর্থিক সহযোগিতা চেয়েছেন বড় কন্যা জ্যোতি।
জ্যোতি জানান, প্রায় ১৬ বছর পূর্বে কান্সার আক্রান্ত হয়ে মারা যান তার পিতা শফিক মিয়া। পিতার মৃত্যুর পর জ্যোতি, তার বোন ফাতেমা ও একমাত্র ছোট ভাই রবিউল আলম নাহিদকে নিয়ে ইসলাপুর গ্রামে মামার বাড়িতে বসবাস করে আসছেন। পিতার অবর্তমানে তিনিই তাদের একমাত্র অভিভাবক। তার মা হাসিরুন নেছাও প্রায় এক বছর হলো দুরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন। এরপর স্থানীয় চিকিৎসক থেকে শুরু করে কয়েক দফায় সিলেটের বিভিন্ন হাসপাতালে মাকে চিকিৎসা করানো হয়েছে। এতে তার মায়ের কোনো উন্নতি হয়নি। বর্তমানে তার মায়ের শারিরিক অবস্থা খুবই শঙ্কটাপন্ন। জ্যোতি আরো বলেন, সম্প্রতি তার মাকে আবারও সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে দ্রæত অপারেশন করানোর কথা জানান। তাকে দ্রæত অপারেশনের করানো না গেলে তিনি মারা যেতে পারেন বলেও জানান চিকিৎসকরা। সব মিলিয়ে ব্যয়ভার প্রায় দুই লক্ষ টাকা। সহায়-সম্বলহীন জ্যোতি অপারেশনের জন্য এতো টাকার ব্যবস্থা করতে পারেননি বলে চিকিৎসার অভাবে মাকে নিয়ে বাড়িতে অবস্থান করছেন। জ্যোতি বলেন, ‘মায়ের চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করতে গিয়ে তারা সহায়-সম্বল হারিয়ে প্রায় নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন। দু’বেলা এখন আমাদের মুখে খাবারও জোটছে না। কিন্তু চোখের সামনে বিনা চিকিৎসায় মাকে মরতে দেখতে পারি না।’ এর জন্য মৃত্যু পথযাত্রী মায়ের চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও সমাজের বিত্তবানদের কাছে মানবিক সাহায্য প্রার্থনা করেন জ্যোতি। জ্যোতির মাকে আর্থিক সাহায্য পাঠাতে মোবাইল নাম্বার-(বিকাশ) ০১৭২৩-২৩৭৬৫৮, নাছিমা আক্তার জ্যোতি ও কৃষি ব্যাংক ছাতক শাখা, হিসাব নম্বর- ০৩১০১৪৪৮৮১

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে(লাইনে) ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

(আমার বাংলাদেশ/রু-আহমেদ/প/ম )

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: -