সোমবার, ৬ এপ্রিল ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
কেমন আছেন মধ্যপ্রাচ্যে কর্মরত আমাদের প্রিয়জনেরা!  » «   এবার প্রথম সিলেটে করোনায় আক্রান্ত চিকিৎসক  » «   কানাইঘাটে ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাত, আটক ১  » «   জগন্নাথপুরে ভূয়া লন্ডনি কন্যা সহ গ্রেফতার ৩  » «   নবীগঞ্জে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় জগন্নাথপুরের যুবক নিহত  » «   আরও প্রবাসীকে ফিরিয়ে আনছে সরকার  » «   যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত বিয়ানীবাজারের কামাল  » «   চীনের ল্যাবেই তৈরি হয়েছিল করোনা  » «   ‘চাল যায়, চাল আসে-তাই নিয়ে সবাই হাসে’  » «   করোনায় শ্রীমঙ্গলে সরব প্রশাসন  » «   সিঙ্গাপুরে ২৬ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   যে কারণে করোনা রোগীর লক্ষণ প্রকাশ পাচ্ছে না  » «   করোনা পরীক্ষার মেশিন আসতেই চিকিৎসকের স্বেচ্ছায় অবসরের আবেদন  » «   মহামারির কারণে যে শহরে রাস্তায় রাস্তায় লাশ পড়ে আছে  » «   বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের ভিন্ন আচরণ!  » «  

কুলাউড়া থানার এসআই দিদার উল্ল্যাহকে প্রত্যাহার

আমার বাংলাদেশ অনলাইন ডেস্ক :ঘুষ ও গ্রেপ্তার বাণিজ্যসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে কুলাউড়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) দিদার উল্ল্যাহকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। রোববার মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুপার তাকে প্রত্যাহারের এই নির্দেশ দেন।

মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুপার ফারুক আহমদ সন্ধ্যা ৭টার দিকে প্রত্যাহারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দিদার উল্লাহকে প্রত্যাহার করে মৌলভীবাজার পুলিশ লাইনে আনা হয়েছে। অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, কুলাউড়া থানায় যোগদানের পর থেকেই উপ-পরিদর্শক দিদার উল্ল্যাহ ঘুষ বাণিজ্যের মাধ্যমে মামলার আসামিকে ছেড়ে দেয়াসহ নানা অনিয়মে জড়িয়ে পড়েন। ২০১৬ সালের দিকে অনিয়মের অভিযোগে তাকে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়। এবং পরবর্তীতে কমলগঞ্জ থানায় বদলি করা হয়। এরপর ২০১৮ সালের শেষের দিকে আবারো কুলাউড়া থানায় উপ-পরিদর্শকের দায়িত্বে ফিরে আসেন। দায়িত্ব নেওয়া পর থেকে আবারো অনিয়ম ও গ্রেপ্তার বাণিজ্যে বেপরোয়া হয়ে ওঠেন।

গত বছরের জুলাই মাসে উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নের পারিবারিক বিরোধের জেরে হাজেরা বেগম নামে এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে কুপিয়ে জখম করা হয়। এ ঘটনায় মামলা প্রধান আসামি রুহুল আমিন ৮ দিনের মধ্যে জামিনে বের হয়ে এসে দ্বিতীয় দফায় ওই ছাত্রীর মা-বাবাকে মারধর করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়। এই ঘটনায় ছাত্রীর মা ফাতেমা বেগম রুহুল আমিনসহ তার পরিবারের লোকজনকে অভিযুক্ত করে মামলা দিতে চান। কিন্তু মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই দিদার উল্ল্যাহ অভিযুক্ত রুহুল জেলহাজতে রয়েছে এমন অজুহাত দেখিয়ে মামলার এজাহারে রুহুলের নাম বাদ দেন। এ ঘটনায় রুহুলের পরিবারের পক্ষ থেকে টাকা নিয়েছেন এসআই দিদার এমন অভিযোগ হাজেরার পরিবারের। সম্প্রতি মাদক মামলার মূল আসামিকে ধরে ঘুষের বিনিময়ে আবার তাকে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।

অভিযোগের ব্যাপারে এস আই দিদার উল্ল্যাহর কাছে জানতে তার মোবাইলে একাধিকবার কল দিয়ে বন্ধ পাওয়া যায়।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল) সাদেক কাওসার দস্তগীরের কাছে প্রত্যাহারের কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রশাসনিক কারণেই দিদার উল্লাহকে জেলা পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে(লাইনে) ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

(আমার বাংলাদেশ/রু-আহমেদ/প/ম )

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: -