সোমবার, ৬ এপ্রিল ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
কেমন আছেন মধ্যপ্রাচ্যে কর্মরত আমাদের প্রিয়জনেরা!  » «   এবার প্রথম সিলেটে করোনায় আক্রান্ত চিকিৎসক  » «   কানাইঘাটে ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাত, আটক ১  » «   জগন্নাথপুরে ভূয়া লন্ডনি কন্যা সহ গ্রেফতার ৩  » «   নবীগঞ্জে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় জগন্নাথপুরের যুবক নিহত  » «   আরও প্রবাসীকে ফিরিয়ে আনছে সরকার  » «   যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত বিয়ানীবাজারের কামাল  » «   চীনের ল্যাবেই তৈরি হয়েছিল করোনা  » «   ‘চাল যায়, চাল আসে-তাই নিয়ে সবাই হাসে’  » «   করোনায় শ্রীমঙ্গলে সরব প্রশাসন  » «   সিঙ্গাপুরে ২৬ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   যে কারণে করোনা রোগীর লক্ষণ প্রকাশ পাচ্ছে না  » «   করোনা পরীক্ষার মেশিন আসতেই চিকিৎসকের স্বেচ্ছায় অবসরের আবেদন  » «   মহামারির কারণে যে শহরে রাস্তায় রাস্তায় লাশ পড়ে আছে  » «   বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের ভিন্ন আচরণ!  » «  

গোলাপগঞ্জে কোয়ারেন্টিনে প্রবাসীদের অনীহা, শঙ্কিত সাধারণ জনগণ

আজিজ খান, গোলাপগঞ্জ থেকে :সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলায় সদ্য বিদেশফেরত প্রবাসীরা হোম কোয়ারেন্টিনের নিয়ম মানছেন না। কোয়ারেন্টিনের প্রতি অনীহা দেখিয়ে অনেকেই অবাধে মেলামেশা করছেন পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে, কেউ কেউ খেলছেন নিজেদের শিশু সন্তানদের নিয়ে। আবার অনেকে প্রতিবেশীদের ঘরে ঘরে, কেউ রাজমহল, ফিজা, রসমেলা কিংবা বনফুলে কফি খেতে অবাধে বিচরণ করছেন। ফলে গোলাপগঞ্জ উপজেলায় করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে, এতে শঙ্কিত রয়েছেন সাধারণ জনগণ।

সরজমিনে উপজেলার বুধবারী বাজার, চন্দরপুর বাজার, ঢাকাদক্ষিণ ও ভাদশ্বর বাজারে অনেককে ঘুরতে দেখা যায়। হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা জিঞ্জেস করলে তারা বলেন, এটা কি আমি জানিনা। এমএজি ওসমানি আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে আমি ফরম পূরণ করেছি। আমি ভাল আছি এজন্য আমায় বাড়িতে আসতে দেওয়া হয়েছে। একই ভাবে আরো কয়েকজন বিদেশফেরতের সাথে যোগাযোগ করা হলে তাদেরও একই অবস্থা।

এরই মধ্যে রবিবার (২২ মার্চ) সরেজমিন ঘুরে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। উপজেলা প্রশাসন, থানা-পুলিশ কিংবা উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে ইউরোপ, আমেরিকা ও মধ্যপ্রাচ্যর দেশ থেকে আসছেন ১১৬৬ জন। এদের মধ্যে অনেকে নিদিষ্ট কক্ষে না থেকে অবাধে যত্রতত্র ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

স্থানীয় সূত্রে পাওয়া তথ্য মতে, গত কয়েকদিন এই উপজেলার ভাদেশ্বর ইউনিয়ন, বুধবারী বাজার ইউনিয়ন, লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নে বেশ কয়েকজন প্রবাসী এসেছেন প্রকৃতপক্ষে হোম কোয়ারেন্টিনের নিয়ম মানছেন না কেউ। প্রত্যেকেই সকাল-বিকাল চায়ের দোকান, প্রতিবেশীর বাড়ি কিংবা হাট-বাজারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তবে কেউ কেউ পুলিশের ভয়ে বাধ্য হয়ে ঘরে থাকলেও পরিবারের শিশু-বৃদ্ধদের সঙ্গে আড্ডায় আছেন বেশ। ইতোমধ্যেই উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ যৌথভাবে দু-তিন জন প্রবাসীর বাড়িতে অভিযানও চালিয়েছে। তাদের দাবি-হোম কোয়ারেন্টিনের আইন সবাই ফলো করছেন।

স্থানীয়রা জানান, বনগ্রাম ও বাণীগাজি গ্রামের লন্ডন ফেরত মহিলা ও ফ্রান্স ফেরত এক জন প্রবাসী গত কয়েকদিন আগে দেশে ফিরেছেন। তারা নিয়ম ভঙ্গঁ করে প্রতিবেশীর বাড়ি বাড়ি ঘুরছেন। এভাবেই কোয়ারেন্টিনের নিয়ম ভেঙে অবাধে ঘোরাফেরা করছেন প্রবাসীরা। একই দৃশ্য উপজেলার প্রায় গ্রামের প্রবাস ফেরতদের।

এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জ উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা ও স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মনিসর চৌধুরী বলেন, আমরা করোনা প্রতিরোধ করতে চেষ্টা করে যাচ্ছে। বিদেশ ফেরত প্রবাসীরা অবাধে চলাফেরা করছেন তাদের নিকট লোক পাঠানোর চেষ্টা করছি।

গোলাপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মামুনুর রহমান বলেন, দেশে ফিরে আসা প্রবাসীদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে। আমাদের কাছে ১১৬৬ জন বিদেশফেরত লোকের তালিকা রয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে তদারকি করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে ৩ জন প্রবাসিকে হোম কোয়ারেন্টাইন না মানায় ১০ হাজার টাকা করে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে ।

তাছাড়া কোচিং সেন্টার, বিশেষ আয়োজন করে খেলাধুলা, সন্ধ্যায় মধ্যেই দোকানপাট বন্ধের নির্দেশ দিয়েছি। নির্দেশনা অমাণ্য করলে তাদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করব।

অন্যদিকে, গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন, জানামতে গত কয়েকদিন আমরা উপজেলার কয়েক জন প্রবাসী দেশে ফিরেছেন। এদের সবাই বর্তমানে এখানে থাকেন না। তবে উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ যৌথভাবে প্রবাসীদের বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন।

সুত্রঃ দৈনিক শ্যামল সিলেট (২৩/০৩/২০)

 (আমার বাংলাদেশ/কাআহমেদ// )

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: -