শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
করোনা উপসর্গ নিয়ে বৃদ্ধের মৃত্যু, সৎকার করলো প্রশাসন  » «   সিলেটে ছুরিকাঘাতে শ্রমিক নেতা খুন  » «   কোয়ারেন্টিনে নারী পুলিশ সদস্যের বিষপানে মৃত্যু  » «   মাছ ব্যবসায়ী যখন ডাক্তার’  » «   সিলেটে করোনা সংখ্যা প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে  » «   শিক্ষকের ধর্ষণে ১০ বছরের শিশু অন্তঃসত্তা  » «   পুলিশের হাত থেকে বাঁচতে নদীতে ঝাঁপ নারী নিখোঁজ  » «   একটি ঘুষি দেই দম বন্ধ হয়ে যায় ”তারপর ঘাড় মটকে হত্যা করি  » «   শনিবার বেলা ১১টায় বনানী মসজিদে সাহারা খাতুনের জানাজা  » «   দেশে নতুন ২ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি  » «   সাহেদ যে কাজ করেছে শাস্তি তাকে পেতেই হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   করোনা জয় করে মানুষের সেবায় ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মনজুর-এ-মর্শেদ  » «   সাংবাদিক কী সন্ত্রাসী”ভাড়াটিয়া গুন্ডা ”ইকরামুল কবির  » «   নাট্যনির্মাতা স্বপন সিদ্দিকী করোনায় মারা গেলেন  » «   বনানী কবরস্থানে মা বাবার পাশে দাফন করা হবে সাহারা খাতুন’কে  » «  

করোনা নিরাময়ে আশার আলো, কাল থেকে ভ্যাকসিনের পরীক্ষা শুরু!

আমার বাংলাদেশ অনলাইন ডেস্ক :মহামারি করোনা যু’দ্ধে বড় পদক্ষেপ। আগামিকাল, বৃহস্পতিবার থেকে মানুষের শরীরে পরীক্ষা করে দেখা হবে ভ্যাকসিন। আশার আলো দেখাচ্ছেন অক্সফোর্ডের গবেষকরা। করোনাকে বিশ্ব থেকে ধুয়ে মুছে সাফ করতে দরকার ভ্যাকসিন। সেই ভ্যাকসিন তৈরির পথে আশার আলো দেখাচ্ছেন অক্সফোর্ডের গবেষকরা।বৃহস্পতিবার থেকে মানব শরীরে ভ্যাকসিনের পরীক্ষা শুরু৷
প্রথমে সুস্থ, স্বাস্থ্যবান তরুণের শরীরে পরীক্ষা করা হবে৷ তারপর ধাপে ধাপে বিভিন্ন বয়সের মানুষের শরীরে৷ মে মাসের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে ৫০০ জনের শরীরে এই ভ্যাকসিন পরীক্ষা করে দেখা হবে৷ পরীক্ষায় সাফল্য মিললে আরও অন্তত এক হাজার জন ব্যক্তির শরীরে পরীক্ষা করা হবে৷
অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীদের বিশ্বাস, এই গবেষণায় সাফল্য মিলবেই৷ সেপ্টেম্বরের মধ্যেই অন্তত ১০ লক্ষ ভ্যাকসিন তৈরি করা যাবে বলে মনে করা হচ্ছে৷ করোনা ভ্যাকসিন তৈরির লক্ষ্যে গবেষণা চালাচ্ছে লন্ডনের ইমপিরিয়াল কলেজও৷ অক্সফোর্ড ও ইমপিরিয়াল কলেজকে গবেষণার কাজে প্রায় সাড়ে চার কোটি পাউন্ড অর্থ সাহায্য দিচ্ছে ব্রিটেন সরকার৷
শুধুমাত্র ব্রিটেনই নয়, করোনা ভ্যাকসিন তৈরির লক্ষ্যে বিশ্ব জু়ড়েই কোমর বেঁধে নেমেছেন বিজ্ঞানীরা। জানা গিয়েছে, প্রায় ৭০টি ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা চলছে৷ এর মধ্যে ১৮ শতাংশ গবেষণার কাজ হচ্ছে চীনে৷ ১৮ শতাংশ এশিয়া ও অস্ট্রেলিয়ায়৷ ১৮ শতাংশ ইউরোপে৷ বাকি ৪৬ শতাংশ গবেষণা হচ্ছে উত্তর আমেরিকায়৷

 (আমার বাংলাদেশ/কাআহমেদ// )

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে(লাইনে) ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: -