শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
করোনা উপসর্গ নিয়ে বৃদ্ধের মৃত্যু, সৎকার করলো প্রশাসন  » «   সিলেটে ছুরিকাঘাতে শ্রমিক নেতা খুন  » «   কোয়ারেন্টিনে নারী পুলিশ সদস্যের বিষপানে মৃত্যু  » «   মাছ ব্যবসায়ী যখন ডাক্তার’  » «   সিলেটে করোনা সংখ্যা প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে  » «   শিক্ষকের ধর্ষণে ১০ বছরের শিশু অন্তঃসত্তা  » «   পুলিশের হাত থেকে বাঁচতে নদীতে ঝাঁপ নারী নিখোঁজ  » «   একটি ঘুষি দেই দম বন্ধ হয়ে যায় ”তারপর ঘাড় মটকে হত্যা করি  » «   শনিবার বেলা ১১টায় বনানী মসজিদে সাহারা খাতুনের জানাজা  » «   দেশে নতুন ২ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি  » «   সাহেদ যে কাজ করেছে শাস্তি তাকে পেতেই হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   করোনা জয় করে মানুষের সেবায় ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মনজুর-এ-মর্শেদ  » «   সাংবাদিক কী সন্ত্রাসী”ভাড়াটিয়া গুন্ডা ”ইকরামুল কবির  » «   নাট্যনির্মাতা স্বপন সিদ্দিকী করোনায় মারা গেলেন  » «   বনানী কবরস্থানে মা বাবার পাশে দাফন করা হবে সাহারা খাতুন’কে  » «  

মস্তিস্ক জুড়ে শুধু করোনা ভাইরাস মুকুল হক

আমার বাংলাদেশ অনলাইন ডেস্ক :আমরা এমন এক সময় পার করছি মস্তিস্ক জুড়ে শুধু করোনা ভাইরাস! ঘুম থেকে উঠেই টিভি অন করে করোনা ভাইরাসের খবরাদি শুনি স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক। না আজ দৈনন্দিন রুটিন থেকে বিরতি নিয়েছি। ঘুম থেকে উঠে টিভি আর অন করিনি। আজকের আবহাওয়া ছিল চমৎকার, বাসার সম্মুখভাগের বারান্দা গিয়ে বসি। নিজের সাথে নিজেই কথা বলছি ,কী চমৎকার একটা দিন আজ, তাই না?

নিজের সাথে কথা বলছি অবিরত, কিছুক্ষণ পরে মনে হয়েছে চমৎকার আবহাওয়া আর শান্ত পরিবেশে বসে নিজের সাথে নিজেই কথা কেমন জানি মনে একটা প্রশান্তি এনে দিয়েছে। হঠাৎ দেখি নেক্সট ডোরের প্রতিবেশী বের হয়েছেন, স্বাভাবিক নিয়মে হাই হ্যালো করে নিলাম। বললেন বের হয়েছি কিছু সময়ের জন্য ( বাংলায় অনুবাদ) চমৎকার দিনটি এনজয় করার জন্য।

বললাম কিছু সময় কেন? বললেন “ব্যাংক অব আমেরিকায় কাজ করেন, বাসা থেকেই কাজ করতে হচ্ছে, ক্লায়েন্টরা ওভারসিজ থাকায় সারাক্ষণ কম্পিউটারেই থাকতে হয়। করোনা ভাইরাসের মৃত্যুতে অনেক আত্মীয়-বন্ধু হারিয়েছেন সেই কষ্ট বুকে নিয়ে আমরা যে বেঁচে আছি, থ্যাংক গুড”।

তারপর বিদায় জানিয়ে উনার বাসায় ঢুকে গেলেন। আসলেই আমরা যারা বেঁচে আছি, আমাদের উচিত আমাদের হায়াতের কারনে মহান আল্লাহ পাকের শুরিয়া আদায় করা, আলহামদুলিল্লাহ। বাসায় ঢুকে মনে হয়েছে মাত্র কয়েক মিনিটের তাজা বাতাস আমাকে দিয়েছে অদ্ভুত এক ভাল লাগার অনুভুতি।

গত কয়েকদিন আগে সহধর্মীনি চুল কেটে দিয়েছিলেন, তখন চুল গুলোর সা রে গা মা ঠিক ছিল না এখন চুল গুলো বড় হয়ে সুন্দর দেখাচ্ছে। আমি বিশ্বাস করি যে আমরা কীভাবে নিজেকে সুদর্শন হিসাবে দেখি তার কয়েকটি কারণ রয়েছে, যেমন আপনাকে সুদর্শন দেখাচ্ছে যখন আপনি ভাল বোধ করবেন।

আপনাকে দেখতে সুদর্শন লাগছে বলে আপনি ভাল বোধ করছেন এবং আপনি যখন ভাল বোধ করবেন তখনই আপনি দেখতে সুদর্শন। মহান আল্লাহর উদ্দেশ্যে যোহরের নামাজ আদায় করি।

খানিক্ষণ কোরআন শরিফ তেলাওয়াত করি। তারপর বাথরুম, বেইজমেন্ট পরিস্কার করে অদ্ভুত এক ভাল লাগার অনুভুতি হয়। আগেই বলেছি দৈনন্দিন রুটিন থেকে বিরতি নিয়েছি, ভাল লাগার অনুভুতি দিয়েই দিনটি শুরু হয়েছিল তাইতো মস্তিষ্কও অনুসরণ করছে।

বাসার বৈঠকখানায় বসে পরিকল্পনা করছি। ইনশাআল্লাহ আগামীকাল বের হবো করোনা ভাইরাসের নিয়ম মেনে।

ঘরের দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় কিছু জিনিস আর সহধর্মীনি ও সন্তানদের ভাল লাগা কিছু জিনিস ক্রয় করবো। পরিকল্পনা যখন করছি তখন আনন্দিত বোধ করছি আসলে পরিকল্পনাও অদ্ভুত এক ভাল লাগার অনুভুতি সৃষ্টি করে।

প্রতিদিন টেবিলে ইফতার রেডি পাই ইফতার যখন শেষ, সহধর্মিনীকে বললাম থালা-বাসন গুলো আমিই ধুইবো।রান্না ঘরে থালা-বাসন গুলো যখন পরিস্কারে ব্যস্ত, হঠাৎ রান্না ঘরের জানালা দিয়ে দেখি পড়শী তাঁর বাড়ির পিছনের ডেকে আলোকসজ্জা করে বারবি কিউ করছেন।

আলোকসজ্জা আর বারবি কিউ দেখে অদ্ভুত এক ভাল লাগার অনুভুতি সৃষ্টি হয়। মনে মনে পড়শীকে ধন্যবাদ দেই। এই অদ্ভুত এক ভাল লাগা স্মরণ করিয়ে দিল প্রতিবেশীর সঙ্গে তর্কাতর্কি ও বিবাদ এড়িয়ে চলুন।

মস্তিস্ক জুড়ে শুধু করোনা ভাইরাস, না আর নয়। অদ্ভুত এক ভাল লাগার অনুভুতি সৃষ্টি কিন্ত আমাদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে নয় আমরাই পদক্ষেপ নিতে পারি। প্রায় এক মাস ধরে বাসাতেই আছি।

খারাপ লাগছে তারপরও খারাপ জিনিসগুলি যতই খারাপ লাগুক না কেন, আমি কৃতজ্ঞ। ঠান্ডা দিনে গরম জল! অ্যামেজিং! গরম দিনে ঠাণ্ডা জল! অবিশ্বাস্য! আলহামদুলিল্লাহ আমরা সত্যিই ভাগ্যবান-ভাগ্যবতী। লেখকঃ মুকুল হক নিউইয়র্ক

 (আমার বাংলাদেশ/কাআহমেদ// )

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে(লাইনে) ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: -