মঙ্গলবার, ১১ অগাস্ট ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
পদত্যাগের ঘোষণা দিলো লেবানন সরকার  » «   শোক দিবসে দেশের সব মসজিদে মসজিদে বিশেষ দোয়া  » «   বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্বনেতা”ড. হাছান মাহমুদ  » «   সিনহার গায়েব হওয়া ক্যামেরা-ল্যাপটপে কী ছিল  » «   স্বাভাবিক নিয়মে নির্বাচনী কার্যক্রম শুরু  » «   দুই কর্মকর্তার ছায়ায় ছিলেন প্রদীপ  » «   ভয়াবহ বিস্ফোরণে উড়ে গেল বাড়ি  » «   শুভ জন্মাষ্টমী আজ  » «   সিলেটে আলোচিত ট্রাফিক সার্জেন্ট চয়ন নাইডু সাময়িক বহিষ্কার  » «   উত্তপ্ত বৈরুত, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দখল  » «   একাদশে ভর্তির আবেদন শুরু আজ  » «   সাংবাদিক আলাউদ্দিন হেলালের মুত্যৃ  » «   করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের অর্থ দিচ্ছে ফেসবুক  » «   বঙ্গমাতা ত্যাগের দৃষ্টান্ত দেখিয়ে গেছেন  » «   ঈদ শেষে রাজধানীতে ফিরছে মানুষ  » «  

হোটেলেই যখন ভূতের বসবাস

Sharing is caring!

আমার বাংলাদেশ অনলাইন ডেস্ক :দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে ভীতিকর জায়গাগুলোর মাঝে এই হোটেলটি অন্যতম। হোটেলটি তৈরি হয় ১৮৪৯ সালে। তখন এর নাম ছিল নর্থ কাপুনডা আর্মস। ১৮৫৬ সালে নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় নর্থ কাপুনডা হোটেল।

তখন তামা খনিতে কাজ করতে অনেক শ্রমিক কাপুনডা শহরে এসে বসবাস শুরু করে। তাদের জন্যই তৈরি হয়েছিল হোটেলটি। কাপুনডা শহরের রাজনৈতিক ইতিহাসের সঙ্গেও জড়িয়ে আছে হোটেলের অতীত ইতিহাস।

১৮৫৯ সালে কাপুনডা শহরে দাঙ্গা হয়েছিল। তৎকালীন পুলিশ সুপার মিস্টার কুয়েলি কাপুনডা হোটেলের বেলকনিতে দাঁড়িয়ে, রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা হাজারও মানুষের উদ্দেশে বিশেষ দাঙ্গা আইন পড়ে শোনান। জনমত আছে, সে সময় খনি শ্রমিকরা হোটেলের নিচ দিয়ে বেশ কিছু টানেল নির্মাণ করেন যা স্থানীয় বিভিন্ন খনির সঙ্গে সংযুক্ত ছিল।

টানেলে আটকা পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু ও পতিতাদের ধরে এনে নির্যাতন করে মেরে ফেলাসহ এখানে আরও অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে বলে শোনা যায়। হঠাৎ করেই হোটেলটিতে শুরু হয় ভৌতিক কার্যকলাপ যার চাক্ষুষ সাক্ষী আছে অনেকেই। স্থানীয়রা বিশ্বাস করেন, এ হোটেলে মৃত্যুবরণকারী সব অধিবাসীর ভূত এখনও বাস করছে এখানে। এদের মধ্যে আছে হোটেলের এক সময়কার মালিক, খনি শ্রমিক, রাজনীতিবিদ, রূপসী মেয়েসহ আরও অনেকে।

 (আমার বাংলাদেশ/কাআহমেদ// )

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে(লাইনে) ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

Sharing is caring!

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: -