মঙ্গলবার, ৪ অগাস্ট ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২০ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
ভারত সরকারের সবুজ সংকেত আইপিএল আয়োজনে  » «   তৃতীয় দিনের ঈদ আয়োজন  » «   খুলছে অফিস-আদালত  » «   ১৫ হাজার লোক নেবে রেল  » «   ঘুমন্ত মানুষের উপর গ্রেনেড হামলা  » «   করোনায় আক্রান্ত ভারতের কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী  » «   বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর জনগণ সব সম্ভাবনা হারিয়ে ফেলে  » «   মৃত্যুটাই নিশ্চিত, ত্রুটি থাকলে ক্ষমা করবেন’ফেসবুকে এমন স্ট্যাটাস দেওয়ার পর মৃত্যু  » «   ১ কোটি ৮০ লাখ ছাড়াল করোনায় আক্রান্ত  » «   সিলেটের নদ-নদীতে বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে  » «   শেখ হাসিনাকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন মমতা  » «   দিল্লিতে গোমাংস পরিবহন সন্দেহে ট্রাকচালককে হাতুড়িপেটা  » «   ধর্ষণের দায়ে ব্রিটিশ এমপি গ্রেফতার  » «   যে কারণে আফগানদের ভরাডুবি  » «   আমি জানি না আমার পরবর্তী জীবনসঙ্গী কে হবে”তাহসান  » «  

শিক্ষকের ধর্ষণে ১০ বছরের শিশু অন্তঃসত্তা

Sharing is caring!

আমার বাংলাদেশ অনলাইন ডেস্ক :আরবি শিক্ষকের ধর্ষণে বগুড়ার নন্দীগ্রামে শিশুকন্যা (১০) তিন মাসের অন্তঃসত্তা হয়েছে। গ্রাম্য সালিশে টাকার বিনিময়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টার অভিযোগে চারজন গ্রাম্য মোড়লকে আটক করেছে পুলিশ।

তিন লাখ টাকার বিনিময়ে কয়েকবার সালিশের মাধ্যমে ঘটনাটি আপোষ-মিমাংসা করার চেষ্টা করেন এই মোড়লরা বলে অভিযোগ রয়েছে। ধর্ষিতার পরিবারকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতিও দেখান তারা।

৯ জুলাই বৃহস্পতিবার রাতে ও ১০ জুলাই শুক্রবার দুপুরে থানা পুলিশ দফায় দফায় অভিযান চালিয়ে কয়েকজন গ্রাম্য মোড়লকে আটক করলেও অভিযুক্ত লম্পট মক্তব শিক্ষক রুহুল কুদ্দুস (৫৫) এখনো ধরাছোয়ার বাইরে।

আটককৃতরা হলেন দারিয়াপুর শাহপাড়ার আবু সাঈদ (৬০), আফজাল হোসেন (৬৫), বাবু মিয়া (৩৫), শাকিবুল্লাহ (৩০)।

ধর্ষিতার পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দারিয়াপুর শাহপাড়ার মৃত অপি শাহ’র ছেলে রুহুল কুদ্দুস (৫৫) নিজ বাড়িতে মক্তব খুলে দীর্ঘদিন ধরে গ্রামের শিশুদের আরবি শিক্ষা দিয়ে আসছিলেন। একই এলাকার নসিমন চালক তার শিশুকন্যাকে (১০) মক্তবে আরবি শেখার জন্য ভর্তি করান।

এই লম্পট শিক্ষক আরবি শিক্ষা দেয়ার আড়ালে শিশুকন্যাদের দিকে কু-নজর দেন। ৫-৬ মাস পূর্বে নসিমন চালকের কন্যাকে বিভিন্নভাবে ফুসলিয়ে দিনের পর দিন ধর্ষণ করেন ওই শিক্ষক। মেয়েটি ভয়ে বিষয়টি পরিবারকে জানায়নি। এখন শিশুকন্যাটি অন্তঃসত্তা হওয়ার পর ঘটনাটি জানাজানি হয়ে গেছে।

শিশুটির মা জানান, বেশ কিছুদিন ধরে তাদের শিশুকন্যাটি বমি করছিল। ৬ জুলাই সোমবার নন্দীগ্রামে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিয়ে গেলে শিশুকন্যা তিন মাসের অন্তঃসত্তা হয়েছে বলে জানান চিকিৎসকরা। তখন তার মেয়ে তাকে সব খুলে বলে।

থানার ওসি মোহাম্মদ শওকত কবির বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ভুক্তভেআগি শিশু থানা হেফাজতে রয়েছে। অভিযুক্ত লম্পট শিক্ষক রুহুল কুদ্দুসকে আটকের জোর চেষ্ট চলছে। গ্রাম্য সালিশে বিষয়টি ধামামচাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল বলে শুনেছি। গ্রামের চার মাতব্বরকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় ৯ এর ১ ধারায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করা হয়েছে।সুত্র সময়ের কণ্টস্বর

(আমার বাংলাদেশ/কাআহমেদ// )

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে(লাইনে) ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

Sharing is caring!

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: -