মঙ্গলবার, ১১ অগাস্ট ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
করোনায় পুলিশের সদস্যর মৃত্যু  » «   ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   করোনায় আক্রান্ত পাট মন্ত্রণালয়ের ৪ কর্মকর্তা-কর্মচারী  » «   হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের বৈঠকের সামনে গুলি, সরিয়ে নেয়া হল ট্রাম্পকে  » «   রাশিয়ার তৈরি প্রথম ভ্যাকসিন কাজ করবে যে রকম  » «   করোনায় সারা বিশ্বে মৃত্যু ৭ লাখ ৩৪ হাজার ছাড়িয়েছে  » «   ভেন্টিলেশন সাপোর্টে প্রণব মুখার্জি  » «   নতুন রোগে আক্রান্ত বিশ্বের ১৩ কোটি মানুষ  » «   আজকের খেলার সময় সূচি  » «   আনুষ্ঠানিক অনুমতি পেলো আইপিএল  » «   অ্যাম্বুলেন্সেও জীবিত ছিলেন সুশান্ত,তদন্তে নতুন মোড়  » «   পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে প্রদেশে বোমা বিস্ফোরণে নিহত ৬  » «   বার্মিংহামে প্লাস্টিক ফ্যাক্টরিতে ভয়াবহ আগুন  » «   খুলতে যাচ্ছে বান্দরবানের পর্যটনকেন্দ্রগুলো  » «   পদত্যাগের ঘোষণা দিলো লেবানন সরকার  » «  

বিষাক্ত মদপানে ৩৮ জনের মৃত্যু

Sharing is caring!

আমার বাংলাদেশ অনলাইন ডেস্ক :বিষাক্ত মদ খেয়ে ভারতের পাঞ্জাবের তিনটি জেলায় ৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় ম্যাজিস্ট্রেট পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরেন্দ্র সিংহ।

জানা যায়,গত বুধবার রাত থেকে পাঞ্জাবের অমৃতসর, বাটালা ও তর্ন তরণ জেলা মিলিয়ে বিষাক্ত মদ খেয়ে মৃত্যু হয়েছে মোট ৩৮ জনের। এ ছাড়া আরো বেশ কয়েকজন গুরুতর অসুস্থ। সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এ খবর জানিয়েছে।

পাঞ্জাবের তর্ন তরণ জেলায় মারা গেছে ১৩ জন, অমৃতসরে ১১ ও বাটালা জেলায় আটজনের মৃত্যু হয়েছে।

পাঞ্জাবের পুলিশপ্রধান দীপঙ্কর গুপ্তা জানিয়েছেন, প্রথমে গত ২৯ জুলাই রাতে অমৃতসরের দুটি গ্রাম থেকে বিষাক্ত মদ খেয়ে পাঁচজনের মৃত্যুর খবর আসে। তারপর মৃতের সংখ্যা বাড়তে শুরু করে।

গতকাল শুক্রবার রাতে তা বেড়ে ৩৮ হয়ে যায়।

পাঞ্জাব পুলিশ এরই মধ্যে অমৃতসরের মুছাল গ্রাম থেকে বলবিন্দর কউর নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে। পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরেন্দ্র সিংহ জানিয়েছেন, ঘটনায় দোষীদের কড়া শাস্তি হবে।

একই সঙ্গে তিনি রাজ্যজুড়ে বেআইনি মদের আস্তানা ভাঙার অভিযান চালানোর জন্য পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন।অমরেন্দ্র সিংহ গতকাল শুক্রবার টুইট করেন, ‘বিষাক্ত মদপানে মৃত্যুর ঘটনায় ম্যাজিস্ট্রেট পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি। জলন্ধর ডিভিশনের কমিশনার এ তদন্ত পরিচালনা করবেন। সংশ্লিষ্ট জেলাগুলোর পুলিশ সুপার এবং অন্য প্রশাসনিক কর্মকর্তারা তাঁকে সহায়তা করবেন।

দোষীরা কোনো অবস্থাতেই রেহাই পাবে না।স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, পুলিশের সঙ্গে যোগসাজশেই এলাকায় চোলাই মদের কারবার চলছে দীর্ঘদিন ধরে।

(আমার বাংলাদেশ/রুআহমেদ// )

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে(লাইনে) ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

Sharing is caring!

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: -