শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
পাপুলের সঙ্গে সন্দেহজনক আর্থিক লেনদেন কুয়েতের সেনা কর্মকর্তা গ্রেফতার  » «   করোনায় আক্রান্ত অমিতাভ বচ্চন হাসপাতালে ভর্তি  » «   জকিগঞ্জে মাদক বিরোধী অভিযানে গাজা সহ ১জনকে আটক করলো পুলিশ  » «   স্বাস্থ্যসেবায় ঘাটতি রাখা যাবে না  » «   যে মসজিদের আযান শুনলো তুর্কিবাসী  » «   করোনা শনাক্ত চিংড়ির প্যাকেটে ,নিষিদ্ধ করল চীন  » «   সিলেটের জকিগঞ্জে গুরুসদয় কলেজে ছাত্রলীগের বৃক্ষরোপণ  » «   রাতের সিলেটে ভয়ঙ্কর পানপার্টি  » «   গত দুই দিনে সাগরপথ পাড়ি দিয়ে ইতালি পৌঁছেছে ৩৬২ জন বাংলাদেশি  » «   কক্সবাজারে ঈদুল আযহা পর্যন্ত সব পর্যটন স্পট বন্ধ  » «   বগুড়া-১ উপ-নির্বাচন আগামী ১৪ জুলাই করতেই হবে:সিইসি  » «   করোনা থেকে মুক্তি মিলেছে’মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার  » «   দক্ষিণ আফ্রিকায় সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ৫  » «   ওসমানীতে হাই-ফ্লো নজেল ক্যানেলা প্রদান করলেন”পররাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   সিলেটে লক্ষাধিক জাল টাকার নোটসহ দুজনকে আটক করলো র‍্যাব  » «  

প্রেমিককে বিয়ে করতে স্ত্রীর অভিনব কৌশল

আমার বাংলাদেশ অনলাইন ডেস্ক :স্বামীকে ফেলে প্রেমিকের সাথে বিয়ে করে সংসার করার জন্য অভিনব কৌশল অবলম্বন করে স্ত্রী মুক্তি বেগম। পালিয়ে যাওয়ার আগে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে ছবি এডিট করে রাখে। তারপর প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়ে যাওয়ার সময় ননদের মোবাইলে ইমো থেকে হত্যা করা হয়েছে এমন ছবি পোস্ট করে এবং একটি খুদে বার্তা পাঠায় । খুদে বার্তায় বলা হয়, তুই যেই হোস এই মেয়েটার আত্মীয়দের বলে দিস, আমি ওকে খালাস করে দিয়েছি, ওর সব জেদ আজকে শেষ করছি। বাড়ি যাচ্ছিল তাই না? আসল বাড়ি পাঠিয়ে দিলাম। লাশটা খুজে নিশ। টাটা।’ এরপর বন্ধ করে দেওয়া হয় স্ত্রী মুক্তির মোবাইল।

ঘটনার আগে চলতি মাসের গত ১১ মে মুক্তি বাড়ি যাওয়ার কথা বলে বড়াইগ্রাম উপজেলার রাজাপুর থেকে নিখোঁজ হয় মুক্তি। এর পর স্বামী আকমল হোসেন বাদী হয়ে ওই দিনই বড়াইগ্রাম থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরপর পুলিশ তথ্য প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে এবং ময়ময়সিংহ জেলা পুলিশের সহায়তায় গতকাল মুক্তি ও প্রেমিক আবেদকে ময়ময়সিংহ জেলার ফুলবাড়িয়া উপজেলার দেবগ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করে নাটোরে নিয়ে আসে। বৃহস্পতিবার বেলা একটার দিকে নাটোর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, আকমল হোসেন সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার কুন্দইল গ্রামের মমিন সরদারের ছেলে। অপরদিকে স্ত্রী মুক্তি বেগম একই গ্রামের মমিন প্রামাণিকের মেয়ে। তারা সম্পর্কে মামাত-ফুফাত ভাইবোন। পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর আকমল হোসেন স্ত্রী মুক্তি বেগমকে সাথে নিয়ে ঈশ্বরদী শহরে একটি ভাড়া বাসায় থেকে একটি ভেটেরিনারি ঔষধ কম্পানিতে চাকুরী করতেন। ঈশ্বররদীর বাসায় ভাড়া থাকার সময় মুক্তির সাথে মোবাইলে ময়ময়সিংহ জেলার ফুলবাড়িয়া উপজেরার দেবগ্রামের আব্দুল মেতালেবের ছেলে সানোয়ার হোসেন আবেদের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। কিন্তু মুক্তি বিবাহিতা বিষয়টি আবিদের কাছে গোপন করে। এজন্য সে নিজেকে হত্যার নাটক করে। সেই নাটকের অংশ হিসেবে মুক্তি চলতি মাসের ১১মে বাড়ি যাওয়ার কথা বলে বরে হয়। এরপর রাজাপুর থেকে ননদের মোবাইলে ইমো মেসেজ ও ছবি পাটিয়ে নিখোঁজ হয়। এরপর মুক্তি সিএনজি নিয়ে হাটিকুমরুল পৌঁছে। সেখানে আবিদের সাথে মাইক্রোবাসে উঠে তারা পালিয়ে যায় এবং বিয়ে করে স্বামী স্ত্রী রুপে দেবগ্রামে সংসার করতে শুরু করে।

পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 (আমার বাংলাদেশ/কাআহমেদ// )

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে(লাইনে) ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: -